ভাইরাল

সোনু’র চায়ের দোকান! এক কবে হল? ভাইরাল ছবি দেখে অবাক অভিনেতা

ভারতবর্ষে তিনি সত্যিই মসিহা! বিভিন্ন সময় বিভিন্ন মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে তিনি হয়ে উঠেছেন দেশবাসীর অন্যতম ভরসার স্থল! আপামর ভারতবাসীর কাছে তিনি শুধুমাত্র আর তারকা নন তিনি ধীরে ধীরে হয়ে উঠেছেন ‘মসিহা’। একটা সময় তিনি জনপ্রিয় ভিলেন ছিলেন! আর আজ পর্দার সেই ভিলেনই আপামর ভারতবাসীর কাছে হয়ে উঠেছেন নায়ক। দেশের মানুষের কাছে ভরসা, বিশ্বাস, আশ্বাসের অন্যতম নাম সোনু। পর্দার ভিলেন ক্রমেই বাস্তবের মাটিতে হয়ে উঠেছেন অসহায়ের ত্রাতা, গরিবের মসিহা।

করোনাকালে পরিযায়ী শ্রমিকদের বাড়ি ফেরানো থেকে শুরু করে খাবার এমনকি অর্থ উপার্জনের ব্যবস্থাও করা, সবদিকে যেন একটাই নাম শোনা যাচ্ছিল সোনু সুদ।বলিউডের বক্স অফিসে ছবির সাফল্য দিয়েই তারকাদের খ্যাতি, জনপ্রিয়তার পরিমাপ করা হয়। তবে, শুধুই অভিনয়, গ্ল্যামার বা কাজের সাফল্য নয়, তাঁর বাইরেও কিছু আছে, যা একজন মানুষকে অন্য আরও পাঁচজনের কাছে জনপ্রিয় করে তোলে, তা হল মানবিকতা। আর ভারতবর্ষের বুকে এই মুহূর্তে সোনুর থেকে বেশি মানবিকতা বোধহয় কারর নেই!

আর নিজের সেই গুনেই বর্তমানে তিনি ভারতবাসীর সবচেয়ে আপন জন! সম্প্রতি একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। সেই ছবিতে দেখা যাচ্ছে অভিনেতার নামে খোলা হয়েছে একটি চায়ের দোকান। আর নিজের নামে খোলা সেই চায়ের দোকান দেখে নিজেই হতবাক অভিনেতা! সোশ্যাল মাধ্যমে সেই চায়ের দোকানের ছবি শেয়ার করে অভিনেতার প্রশ্ন, ‘আমার চায়ের দোকান! এটা কবে খোলা হল?’ ইতিমধ্যেই এই ছবিটি ভাইরাল হয়েছে। ওই ছবির কমেন্ট বক্সে অনেকেই বিভিন্ন মজার মজার প্রশ্ন করেছেন। যেমন কেউ লিখেছেন, ‘আমরা সত্যিই চা পাব কিনা।’ বা কেউ লিখেছেন ‘সোনু স্যর, আপনি সবকিছুকে ছাপিয়ে গিয়েছেন।’ কারর বক্তব্য ‘আপনি একজন সুপারস্টার। আজ আপনার কারণে হাজার হাজার মানুষ উপকৃত হচ্ছেন, হয়েছেন।’

https://twitter.com/apparalaharishk/status/1596755302212284416/photo/1

উল্লেখ্য, বিভিন্ন সময় তিনি দেশবাসীর পাশে দাঁড়িয়েছেন! যাঁর যখনই প্রয়োজন পড়েছে তখনই পাশে থেকেছেন তিনি! বাড়িয়ে দিয়েছেন সাহায্যের হাত! শুধুমাত্র করোনাকালীন‌ সময়েই নয়, করোনা পরবর্তী সময়েও‌ মানুষের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন তিনি। করোনা পরিস্থিতি আপাতত কিছুটা স্থিমিত হলেও, তিনি কিন্তু মানুষের সেবা করা ছাড়েননি তিনি। কিছুদিন আগেই তিনি বিহারের গ্রাজুয়েট চায়ে ওয়ালি প্রিয়াঙ্কা গুপ্ত’র পাশে দাঁড়ান!

জানা যায়, অর্থনীতি নিয়ে স্নাতকস্তরের পড়াশোনা শেষ করার পর প্রায় দু’বছর চাকরির চেষ্টা করেছিলেন প্রিয়াঙ্কা। কিন্তু কোনও চকরি পাননি! এরপর তিনি পাটনা উইমেন’স কলেজের কাছে নিজের চায়ের দোকান খোলেন। নাম ‘গ্রাজুয়েট চায়ে ওয়ালি!’ সম্প্রতি, দখল বিরোধী অভিযান চালিয়ে পাটনার মিউনিসিপাল কর্পোরেশন বন্ধ করেছে প্রিয়াঙ্কার দোকান। দোকান খোলার অনেক চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন  প্রিয়াঙ্কা। এরপর সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও পোস্ট করে নিজের ক্ষোভ উগরে দেন ওই তরুণী।

প্রিয়াঙ্কার সেই ভিডিও চোখে পড়ে মসিহা’র! ব্যাস সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা! এই ঘটনার কথা জানার পরই প্রিয়াঙ্কার জন্য নতুন দোকানের ব্যবস্থা করে দেন সোনু। সেইকথা আবার টুইটারে জানিয়ে তিনি লেখেন, “আমি প্রিয়াঙ্কার চায়ের দোকানের জন্য নতুন জায়গার বন্দোবস্ত করে দিয়েছি। এবার আর প্রিয়াঙ্কাকে সেখান থেকে কেউ সরাতে পারবে না। কথা দিচ্ছি বিহারে গিয়ে খুব শিগগিরিই আপনার হাতে তৈরি চা খাব। জয় হিন্দ।”



Back to top button