বিনোদন

মৃত কন্যাকে বাঁচিয়ে রাখার চেষ্টা! ঐন্দ্রিলার জন্মদিনে বিশেষ আয়োজন পরিবারের

দেখতে দেখতে এক বছর পেরিয়েছে, সবাইকে ছেড়ে না ফেরার দেশে পাড়ি দিয়েছেন ঐন্দ্রিলা শর্মা। অনুরাগীদের কাছে তাঁর স্মৃতি ফিকে হতে শুরু করেছে ধীরে ধীরে। কিন্তু বাবা মা দিদির কাছে আজও জীবন্ত ঐন্দ্রিলা শর্মা। তাঁর প্রতিটা মুহূর্ত আজও একই রকম টাটকা পরিবারের কাছে। তাই তো মৃত্যুর পর আবার খুঁচিয়ে উঠছে সেই দগদগে ক্ষত। সোমবার ঐন্দ্রিলার জন্মদিনে পরিবারের তরফে আয়োজন করা হল বিশেষ ভাবে।

টানা যমে মানুষের লড়াইয়ের পর অবশেষে হার মেনেছেন অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা শর্মা। মাত্র ২৪ বছরেই থেমেছে জীবন যুদ্ধের লড়াই। ২০১৫ সালের প্রথম ক্যান্সার ধরা পড়ে অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা শর্মার। এরপর তারা দেড় বছর লড়াই করে সুস্থ হয়ে ফিরে আসেন তিনি। কিন্তু ২০২১ সালে ফের তার দেহে থাবা বাসায় মারন রোগ। কিন্তু সেক্ষেত্রেও অদম্য জেদ ও লড়াইয়ের জেরে ফের একবার ফিরে আসেন ঐন্দ্রিলা। কিন্তু শেষ রক্ষা হয় না তৃতীয়বারের বেলায়। ২০২২- এর পয়লা নভেম্বর ব্রেন স্টোকে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন অভিনেত্রী। টানা কুড়ি দিন লড়াই করার পর অবশেষে হার মানেন জীবনের সবথেকে বড় তিক্ত সত্যির কাছে।

এদিন তাঁর ২৬ বছরের জন্মদিনে পরিবারের তরফে করা হয়েছিল বিশেষ আয়োজন। ঐন্দ্রিলার মা শিখা দেবী জানান, তাঁর নার্সিং স্কুলে আজ অর্থাৎ সোমবার ২৬টি গাছ রোপণ করা হবে। বৃক্ষরোপণ করা হবে তাঁর বাবার কর্মস্থলেও।

ঐন্দ্রিলার দিদি ঐশ্বর্য বোনের ছবি দিয়ে লেখেন, “হ্যাপি বার্থ ডে বিউটিফুল। এই দিনটার জন্য অনেক অনেক শুভেচ্ছা…দিদিভাই তোকেই সবচেয়ে বেশি ভালোবাসে”।

প্রসঙ্গত, বোনের মৃত্যুর পরেই নিজেরদের ছোটবেলার বেশ কিছু ছবি পোস্ট করেন ঐন্দ্রিলার দিদি ঐশ্বর্য। সেখানে কোথাও দেখা যাচ্ছে দুই বোন দুজনকে জড়িয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছেন। আবার কোথাও দেখা যাচ্ছে ঐশ্বর্য হাত ধরে রয়েছেন একরত্তি ঐন্দ্রিলার। আর সেই সমস্ত পোস্টেই ক্যাপশন এর জায়গায় লেখা, “আমার ছোট্ট বুনু, সারা জীবন দুজন দুজনের হাত ধরে বেঁচে ছিলাম আছি থাকবো”।

Back to top button