বলিউড

“আমার সন্তান নায়িকা নাও হতে পারে”, মেয়েকে লোক চক্ষুর আড়ালে বড় করতে চান আলিয়া

কাপুর পরিবারে জন্ম হয়েছে ছোট্ট সিংহী শাবকের! রনবীর-আলিয়ার জীবন আলো করে এসেছে ছোট্ট এক কন্যা সন্তান! চলতি সপ্তাহের রবিবার অর্থাৎ ৬ই নভেম্বর মুম্বইয়ের এক নামকরা হাসপাতালে সন্তানের জন্ম দেন আলিয়া ভাট! সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার আগে থেকেই রীতিমতো ট্রেনিং নেওয়া শুরু করে দিয়েছিলেন অভিনেতা রনবীর! আসলে বিয়ের রেশ কাটতে না কাটতেই বাচ্চা হওয়ার খুশি আর তাই বেশ উচ্ছ্বসিত ছিলেন অভিনেতার ভক্তরা! ইতিমধ্যেই সন্তানের জন্য ঘর সাজানো থেকে বিভিন্ন ট্রেনিং সবকিছুই সেরে ফেলেছেন তাঁরা!

মেয়ের জন্মের পরই সোশ্যাল মিডিয়ায় সিংহ, সিংহী এবং তাঁদের শাবকের একটি বিবৃতি প্রকাশ করে বলিউড অভিনেত্রী লিখেছেন, ‘আমাদের জীবনের সবচেয়ে সুন্দর খবর হল এটি। আমাদের সন্তান এসে গিয়েছে এবং সত্যিই কী মোহময়ী কন্যি সে। তার আগমনে ভালোবাসা এবং আনন্দে আমাদের হৃদয় একেবারে ভরে গিয়েছে। তাঁদের এই খুশিতে শামিল হন বাকিরাও! শুভেচ্ছা বার্তার ঢল নামে সোশ্যাল মিডিয়ায়!

তারকাদের সন্তানদের নিয়ে বরাবরই উচ্ছ্বাস থাকে! করিনা কাপুরের সন্তান থেকে শুরু করে আলিয়ার সদ্যোজাত সবার মুখ‌ই প্রকাশ্যে আনতে চান পাপরাৎজিরা! আর সন্তানদের মুখ না দেখাতে বদ্ধপরিকর তারকারাও! সেরা রানি মুখার্জির মেয়ে আদিরা হোক বা অনুষ্কা শর্মার কন্যা ভামিকা এখন‌ও পর্যন্ত এই সমস্ত তারকা কন্যাদের মুখ কেউ দেখেননি! প্রিয়াঙ্কা চোপড়াও নিজের সন্তানের মুখ প্রকাশ্যে আনেননি! সন্তানকে এখন‌ও মিডিয়ার আলো থেকে দূরে রেখেছেন সদ্য মা হওয়া অভিনেত্রী সোনম কাপুর‌ও! আর এবার এই রাস্তায় হাঁটতে চলেছেন সদ্য মা হওয়া অভিনেত্রী আলিয়া ভাট‌ও!

নিজের মেয়েকে মিডিয়ার আলো থেকে দূরে রাখতেই চান তিনি! তারকারা মিডিয়ার আলো, ক্যামেরার ঝলকানি পছন্দ করলেও তাঁদের সন্তানরা যে সেটা পছন্দ করবেন এমনটা নয়! যেমন শাহরুখ খানের কনিষ্ঠ পুত্র আব্রাম, করিনা কাপুরের বড় পুত্র তৈমুর বারবার ক্যামেরা দেখে বিরক্তি প্রকাশ করেছে! সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে আলিয়া ভাট স্পষ্ট করে জানিয়েছেন, মেয়েকে সংবাদমাধ্যমে সামনে আনার বিষয়ে তিনি একপ্রকার দ্বন্দ্বেই রয়েছেন। আলিয়া একেবারেই চান না, তাঁর সন্তানের জীবনে কোনও ধরনের কোন‌ও অযাচিত ঘটনা ঘটুক। আলিয়া ওই সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, ‘‘আমি এই জীবনটা বেছে নিয়েছি আমার নিজের পছন্দে, কিন্তু হতেই পারে আমার সন্তান এই পথ হাঁটতে চাইল না। তখন অযাচিত কোন‌ও ঘটনা ঘটুক ওঁর সঙ্গে সেটা চাই না। এই বিষয়টা নিয়ে বেশ চিন্তায় আছি!’’

একই সঙ্গে ভবিষ্যতে মেয়ে কি হবে বা কোন পেশায় যাবে সেই পরিকল্পনা প্রসঙ্গে আলিয়া বলেন, ‘‘আমি আমার সন্তাকে নিয়ে এত আগে থেকে কোনও পরিকল্পনা করছি না। আমি এখন থেকে কিছুই ভাবছি না। কারণ আমি যা আশা করব ভবিষ্যতে সেই আশা পূরণ নাও হতে পারে! আর আশা ভঙ্গ হলে খারাপ লাগা থাকবে! তাঁর থেকে বরং ও নিজের মত করেই বড় হোক।’’







Back to top button