গসিপ

এমন ছেলের প্রেমেও আবার কেউ পড়ে? সৌরভকে নিয়ে তির্যক মন্তব্য আসতেই সপাটে জবাব দিলেন দর্শনা

সবাইকে চমকে দিয়েই বিয়ের দিনক্ষণ ঘোষণা করেছেন সৌরভ দাস ও দর্শনা বণিক। কিন্তু সৌরভকে কেন জীবন সঙ্গী হিসেবে বাছলেন তিনি এই নিয়েই সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁকে একাধিক প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়। তবে এই নিয়ে জবাবও দিয়েছেন তিনি।

সোশ্যাল মিডিয়া মানেই নীতি পুলিশের ছড়াছড়ি। সেখানেই যা খুশি মন্তব্য করেন নেটিজেনরা। দর্শনাকে মন্তব্য করে তাঁদের প্রশ্ন, “কেন সৌরভের মতো ছেলেকে বাছলেন দর্শনা? পৃথিবীতে ছেলের অভাব পড়েছিল? এমন ছেলের প্রেমেও আবার কেউ পড়ে”? শুধু সোশ্যাল মিডিয়ায় নয় বরং পরিবার পরিজনদের থেকেও তাঁকে এই ধরনের প্রশ্ন শুনতে হয়েছে।

এই প্রসঙ্গে দর্শনা বণিক বলেন, “আমি মাঝেমধ্যে এসব নিয়ে সত্যিই ভেঙে পড়ি। কিন্তু, সত্যি বলতে সৌরভ খুব ম্যাচিওর। ওর ব্যাপারে এত অকারণ কন্ট্রোভার্সি হয়েছে। নানা ধরনের অযথা তকমাও দিয়ে দেয়। শুধুমাত্র কিছু চরিত্রে অভিনয় করেছে বলে। শুধু তাই নয়, সেই কাজের অফারগুলো ও জীবনে নিয়েছে বলে। সৌরভকে অনেকেই দেখি লেখে মাতাল-গাঁজাখোর। তারা জানেই না ও কোনওদিন গাঁজা টেস্টও করেনি। সৌরভ কোনও অনুষ্ঠান ছাড়া কখনও মদ্যপানও করে না। ওর পর্দার চরিত্র নিয়ে ওর উপর ইমেজ ক্রিয়েট হয়েছে। সেটা আমাদের দু’জনের কাছেই ভীষণ হাস্যকর”।

তবে সব কিছুর পরেও কেন সৌরভই পছন্দের? এই প্রশ্নের উত্তরে অভিনেত্রী বলেন, “আমার মনে হয়েছে ওর মধ্যে একটা অদ্ভুত কোয়ালিটি আছে। সমস্ত মানুষের সঙ্গে একইভাবে মিশতে পারে। ওর এই সিম্পলিসিটি আমার ভালো লেগেছিল। ও মানুষের জন্য বন্ধুদের জন্য যেভাবে ঝাঁপিয়ে পড়ে, সেটা খুব মানুষ পারে”।

অল্প হলেও সত্যি’র সময় থেকে বন্ধুত্ব হয় দর্শনা ও সৌরভের। গোলেমালে গোল’-এর সময়ে বন্ধুত্ব আরও গভীর হয়। এরপরেই ধীরে ধীরে ঘনিষ্টতা বাড়ে। পূর্ব কলকাতায় এক বিলাসবহুল হোটেলে ১৫ ডিসেম্বর বসবে বিয়ের আসর। বলাই বাহুল্য চাঁদের হাট বসবে সেদিন ওই হোটেলে।

Back to top button