বিনোদন

দীপঙ্করের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কই কি হয়? অন্তরমহলের কথা প্রকাশ্যে আনলেন দোলন রায়

দুজনের বয়সের পার্থক্য ২৬ বছর। কিন্তু তাও প্রেম অটুট এখনও। বয়স কোনও ভাবেই বাধা হয়ে দাঁড়ায়নি এই দম্পতির কাছে। দীপঙ্কর দে এবং দোলন রায়, অসম বয়সী জুটি হলেও সুখী জুটি হিসেবেই পরিচিত ইন্ডাস্ট্রিতে।

কিন্তু বয়সের এত পার্থক্যের জন্য তাঁদের মধ্যে কি শারীরিক সম্পর্ক হয়? তাঁদের অন্তরঙ্গ জীবন কতটা সুখের? এই সব কিছু নিয়ে কোনও রাখঢাক না রেখেই মুখ খুলেছেন অভিনেত্রী।নিজেদের সুখী দাম্পত্য জীবনের মূলমন্ত্র জানিয়েছেন।

অভিনেত্রী এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, “একটা সময় পর্যন্ত সব ঠিকঠাকই ছিল। তারপর যা হয় মেয়েরাই সব সময় কম্প্রোমাইজ করে। না হলে তো একটা অশান্তির পরিবেশ সৃষ্টি হয়। ও তো আমার জীবনে প্রায় প্রথমই। আমি স্যাচুরেটেড হয়ে গিয়েছি। ও হয়তো শেষ বয়সে ওর পারা বা না পারা নিয়ে স্যাচুরেটেড হিয়ে গিয়েছে”।

তিনি বলেন, “কিছুটা মানিয়ে নেওয়া, কারণ মানুষটা ভালবাসাটা এত বেশি যে তখন এগুলো খুব একটা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠেনি। ওকে এগুলো অনুভব করতে দিইনি। তাতে কি সম্পর্কটা ঠিক থাকবে। আমার কিছু হয়ে গেলে এতটা নার্ভাস হয়ে যায় যে ভুলভাল সব কিছু করে ফেলে।”

অভিনেত্রীর, তাঁর জন্য কখনোই দীপঙ্কর বাবুর আগের স্ত্রীর সঙ্গে বিচ্ছেদ হয়নি। বরং বিচ্ছেদ হওয়ার অনেক পরেই তাঁদের আলাপ। তাই অভিনেতার প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে দোলনের কোনওদিন বিবাদ হয়নি। এরপর একসঙ্গে থাকতে শুরু করেন তাঁরা। ২০২০ নাগাদ আইনি মতে বিয়ে সারেন।

অভিনেত্রী জানান, “আমার স্বামী কোনওদিনই তাঁর প্রথম স্ত্রীকে পুজো দিতে দেখেননি। বাঙালি বউ কেমন হয়, তা তিনি জানতেনই না। তাই আমি এখন আটপৌরে শাড়ি পরি, পুজো করি, লক্ষ্মীর পাঁচালি পড়ি, তন্ময় হয়ে আমার দিকে তাকিয়ে থাকে দীপঙ্কর। সেই তাকিয়ে থাকায় শান্তি আছে। স্বস্তি পাই এইভেবে যে আমি এটুকু ওকে দিতে পেরেছি”।

Back to top button