বিনোদন

এই গানগুলো গেয়ে অনেক অর্থ উপার্জন করেছি! জীবনে এগিয়ে যাওয়ার পেছনে কাকে কৃতজ্ঞতা দিলেন কুমার শানু?

৯০ দশকের মেলোডি কিং বলে যদি কেউ থাকেন তাহলে তিনি একমাত্র কুমার শানু। তার গান আজও চির নতুন। তবে বাঙালি ছেলে কেদারনাথ ভট্টাচার্য থেকে কুমার শানু হয়ে ওঠার লড়াইটা কিন্তু খুব একটা সহজ ছিল না। কুমার শানু হওয়ার পেছনে রয়েছে এই বাঙালি ছেলের দীর্ঘ স্ট্রাগেলের গল্প।

ইন্ডিয়ান আইডল’ ১৩ সিজনের বিচারক হিসেবে দেখা যাচ্ছে কুমার শানুকে। এবার এই অনুষ্ঠানে এক গান শুনেই নস্টালজিক হয়ে পড়েন তিনি। এক পুরনো গান গেয়েই জীবনে কত অর্থ কামিয়েছেন সেই কথাও বলেন।

রাজস্থানের পীযূষ কুমার ‘প্রেম গীত’ এবং ‘আপ তো অ্যায়সে না থে’ সিনেমা থেকে ‘হোটো সে ছুলো তুম’ এবং ‘তু ইস তারাহ সে মেরি জিন্দেগি’ গান দুটি গান। এই গান শুনেই পুরনো স্মৃতিতে ডুব দেন মেলোডি কিং।

কুমার শানু বলেন, “প্রথম মুম্বইতে এসে এই গানগুলো গেয়ে আমি অনেক অর্থ উপার্জন করেছি। আমি এই গানগুলো বিভিন্ন অনুষ্ঠানে, হোটেলে গাইতাম। শ্রোতারাও খুব ভালোবাসত হোটো সে ছুলো তুম শুনতে। তোমার গাওয়া এই গানগুলো আমাকে নস্টালজিক করে দিয়েছে”।

তিনি আরও বলেন, “স্মিতা পাটিল আর শত্রুঘ্ন সিনহার মুক্তি না পাওয়া সিনেমায় গান গাওয়ার সুযোগ করে দিয়েছিলেন তিনি আমাকে। গাড়ি চালিয়ে তিনি আমাকে তারদেও রেকর্ডিং স্টুডিয়োতে। সেখান থেকে ক্যাসেট নিয়ে তুলে দেন কল্যাণজি ভাইয়ের হাতে। পরে কল্যাণজি আমাকে সুযোগ দিয়েছিলেন”।

Back to top button