বিনোদন

বিশেষ কারণে মাধুরীকে বিয়ে করতে চাননি এই গায়ক! এরপরেই পদোন্নতি অভিনেত্রীর

বলিউডের অন্যতম এভারগ্রিন অভিনেত্রী মাধুরী দীক্ষিত। বলিউডে তার অবাধ বিচরণ। প্রথম ডেবিউ তিনি করেছিলেন মাত্র ১৬ বছর বয়সে। এত বছর বয়সে এসেও এখনও অনুরাগীদের ঘুম কাড়ছেন তিনি। কিন্তু এই অভিনেত্রীকেই বিয়ে করতে রাজি হননি এক স্বনামধন্য গায়ক।

   

সুরেশ ওয়াডকরের কাছে মাধুরীকে বিয়ের প্রস্তাব পাঠানো হয়েছিল। বয়সে সুরেশের চেয়ে ১২ বছরের ছোট মাধুরী। কিন্তু সুরেশ সেই বিয়ের প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। তবে কারণটা ছিল বড় অদ্ভুত। সেই কারণ শুনলে অবাক হতে হয়।

রোগা হওয়ার কারণেই নাকি মাধুরীকে বিয়ে করতে চাননি সুরেশ। বিয়ে ভেঙে দিয়েছিলেন তিনি। এরপরেই নায়িকার বাবা-মায়ের চিন্তা আরও বেড়ে গিয়েছিল। মেয়ের ফিল্মি কেরিয়ার তাঁর সংসারের পথে কাঁটা হবে এমনটাই ধারণা ছিল তাঁদের।

প্রসঙ্গত, বলিপাড়ায় তাঁর ছবিতেই প্রথম ২০০ কোটি টাকার লক্ষ্মী লাভ হয় বক্স অফিসে। শোনা যায়, তিনি শাহরুখ, সালমানের থেকেও বেশি পারিশ্রমিক নিতেন। ১৯৮৪ সালে ‘অবোধ’ ছবিতে তাপস পালের বিপরীতে প্রথম অভিনয় করেন তিনি। এরপর ১৯৮৫ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘আওয়ারা বাপ’ ছবিতে রাজেশ খন্নার সঙ্গে অভিনয় করতে দেখা যায় মাধুরীকে। এই ছবিও বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়ে।

কেরিয়ারে পর পর আটটি ছবি ব্যর্থ হওয়ার পরেও মুষড়ে পড়েননি মাধুরী। অভিনয় জীবন শুরুর প্রায় চার বছর পর কপাল ফেরে তাঁর। ১৯৮৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘দয়াবান’ ছবিতে অভিনয়ের সুযোগ পান মাধুরী। এই ছবিতে বিনোদ খন্না, ফিরোজ় খান এবং অমরীশ পুরীর মতো অভিনেতাদের সঙ্গে অভিনয় করেন তিনি। দারুন হিট হয় ছবি। পরিচিতি বাড়ে অভিনেত্রীর।

এরপরেই একে একে তেজাব, নব্বইয়ের দশকে ‘দিল’, ‘হম আপকে হ্যায় কৌন’, ‘দিল তো পাগল হ্যায়’, ‘সাজন’, ‘থানেদার’, ‘খলনায়ক’, ‘রাজা’র মতো বহু হিট ছবিতে অভিনয় করেন মাধুরী।

Back to top button