বিনোদন

নাচের তালে পা মেলানো থেকে ক্যানভাসে টান! দিদি নম্বর ওয়ানের মঞ্চ মাতালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

অপেক্ষার অবসান করে দিদি নম্বর ওয়ানের মঞ্চে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঞ্চে এসে নিজের আন্দোলনের কথা শোনালেন তিনি। জানালেন নিজের ছোটবেলার কথা। ফিরে গেলেন শৈশবের স্মৃতিতে। মুখ্যমন্ত্রী ছাড়াও অরুন্ধতী হোম চৌধুরি, ডোনা গঙ্গোপাধ্যায়, শ্রীরাধা বন্দ্যোপাধ্যায়দের মতো বিশিষ্ট শিল্পীরা এদিনের বিশেষ পর্বে প্রতিযোগী ছিলেন।

   

এদিন লোকগীতির তালে নাচার পাশাপশি ধামসা বাজান মমতা। রুটি বেললেন, কখনও বা ছবি আঁকলেন, আবার নিজের লেখা কবিতাও শোনালেন। আবার কখনও অন‌্য প্রতিযোগীকে উত্তর দিতেও সাহায‌্য করলেন তিনি।

এদিন মুখ্যমন্ত্রীকে বলতে শোনা যায়, কিভাবে ছোট থেকে লড়াই করে আজ এই পর্যায়ে পৌঁছেছেন তিনি। মমতা বলেন, “১০-১২ বছর বয়স থেকে সংসারের দায়িত্ব নিয়েছি। বাবা মারা গেছিল। আমি আমার জেনারেশনটাকে ধরে রেখেছিলাম। আর আমার পরিবারের এখনকার প্রজন্মকে অভিষেক ধরে রেখেছে”।

মুখ্যমন্ত্রীর সংযোজন, “রাত ৩টেয় উঠে রান্না করতাম। স্ট্রাগল করতাম। সেই ছোটবেলায় ভাইদের দায়িত্ব কাঁধে নিয়ে মানুষ করেছি। আমি কলেজ থেকে বেরিয়ে স্কুলে পড়াতে যেতাম। যে টাকা পেতাম সবটাই মায়ের হাতে তুলে দিতাম। দুধের ডিপোতেও কাজ করতাম। যাতে কারও কাছে হাত পাততে না হয়। সব জমি বিক্রি করে বাবার ব্যবসা দাঁড় করিয়েছিলাম। দাদাকে সেই ব্যবসাকে দেখেছে”।

Back to top button