গসিপ

কস্টিউম জুয়েলারি, লাল ল্যাহেঙ্গায় ফের কনের সাজে নবনীতা! তবে কি শুরু দ্বিতীয় ইনিংস?

জিতু-নবনীতার বিচ্ছেদের খবরে এখন সরগরম টেলি পাড়া। ইতিমধ্যেই আদালতে গড়িয়েছে জল। জল্পনা চলছে বিচ্ছেদের কারণ নিয়ে। যত দিন এগচ্ছে ততই তাঁদের প্রেম-ভালোবাসা-বিচ্ছেদ নিয়ে চর্চা জোরাল হচ্ছে। এরমধ্যেই ফের কনের সাজে ছবি দিলেন অভিনেত্রী। লাল লেহেঙ্গা চোলি পড়ে ছবি আপলোড করলেন তিনি।

জল্পনা উঠছে তাহলে কি জিতুর সঙ্গে বিচ্ছেদ হওয়ার আগেই ফের বিয়ের পিঁড়িতে বসলেন অভিনেত্রী? না একেবারেই তেমনটা নয়। এবার ফটোশুটের জন্য ফের তাঁকে বিয়ের সাজে সাজতে হয়েছে। এক বিশেষ ব্রাইডল মেকআপ ব্র্যান্ডের মুখ হয়েছেন নবনীতা দাস।

ম্যাচিং কস্টিউম জুয়েলারি, কোমরবন্ধনীতে গ্ল্যামার যেন ঠিকরে বেরচ্ছে। লাল লেহেঙ্গা-চোলিতে নববধূর সাজে অসামান্য লাগছে তাঁকে। ক্যামেরার সামনে তাঁর হাসিমুখের পোজ দেখে ঘুম উড়েছে অনুরাগীদের। প্রশংসায় ভরেছে মন্তব্য বাক্স।

প্রসঙ্গত, পুজোর আগেই আক্ষেপের সুর শোনা গেল নবনীতার গলায়। সবকিছু ঠিক থাকলেও কোথাও গিয়ে যেন একটা তাল কাটছে। পুজোর আগে মন ভালো নেই নবনীতার। এক সংবাদ মাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, “এ বছরের দুর্গাপুজো তো অবশ্যই আগের বছরগুলোর চেয়ে অন্য রকম । প্রতি বছর সিঁদুর খেলতাম। একসঙ্গে অঞ্জলি দিতাম। এ বছর আর সে সব হবে না। তবে এ বছর ঘুরতে চলে যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল। ভেবেছিলাম ছ’মাসের জন্য যখন ভিসা আছে তা হলে আর এক বার লন্ডন যাব। কিন্তু মনে হচ্ছে এক সপ্তাহের বেশি ছুটি পাব না। তাই হয়তো বিদেশে যাওয়া হবে না। তবে অষ্টমী থেকে যদি একটু ছুটি পাই দেশেই কোথাও একটা ঘুরে আসব”।

অভিনেত্রী আরো জানান, অন্যান্য বছর দুর্গাপুজোতে তারা বেশ কিছু বন্ধু-বান্ধবের বাড়িতে গিয়ে সময় কাটাতেন যারা তার এবং জিতুর কমন ফ্রেন্ড। কিন্তু এ বছর সেই সমস্ত বন্ধুর বাড়ি যাওয়া অস্বস্তিকর। এবছরের দুর্গাপুজো অন্যান্য বছরের থেকে বেশ খানিকটা যে আলাদা তা এককথায় স্বীকার করে নিচ্ছেন তিনি।

২০১৯-এ ৬ মে বিয়ে হয়েছিল জিতু-নবনীতার। টলিউডে হ্যাপিলি ম্যারেড কাপল হিসেবেই পরিচিত জিতু নবনীতা। কিন্তু হঠাৎ করে ৪ বছর পরেই ছন্দ পতন। তাদের বিচ্ছেদের খবর ছড়িয়ে পড়ে গোটা নেট দুনিয়ায়। তবে আসল কারণ নিয়ে মুখ খোলেন নি কোনও পক্ষই। এরমধ্যেই একাধিকবার এই দম্পতির নানান পোস্ট গিয়ে জল্পনা উঠেছে। জানা গিয়েছে, তাঁদের ডিভোর্স মামলা আদালতে বিচারাধীন।

Back to top button