গসিপ

কোনও কাজে লাগে না! কাঞ্চনকে অ্যাপেন্ডিক্সের সঙ্গে তুলনা ছেলে ওশের

বিয়ের পর রিসেপশনও মিটেছে ভালোয় ভালোয়। ইতিমধ্যেই বাবার বিয়ের ভিডিও দেখে ফেলেছে ছেলে ওশ। এমনকি বাবার নতুন বিয়ের বিতর্কও অবগত তার। কিন্তু কাঞ্চন যখন তাঁর মা কে ডিভোর্সের নোটিশ পাঠিয়েছিল তখন কী বলেছিল ছেলে? এবার সেই কথাই জানালেন অভিনেতার প্রাক্তন স্ত্রী পিঙ্কি।

   

পিঙ্কির সঙ্গে বিচ্ছেদ শেষে নিজের থেকে অর্ধেক বয়েসী শ্রীময়ীকে বিয়ে করেছেন কাঞ্চন মল্লিক। ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল কাঞ্চনের বিয়ের নানান মুহূর্ত। নতুন বউয়ের সঙ্গে খুনসুটি হোক বা চুমু খাওয়া সব কিছুই ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। আর ছেলের চোখেও পড়েছে সেই সব ভিডিওই।

পিঙ্কি এক সংবাদমাধ্যমকে সাক্ষাৎকারে জানান, “আমি যখন ডিভোর্স পেপার পাই তখন লকডাউন চলছে। আমার ছেলের অনলাইনে ক্লাস চলছিল। আমি তখন আমার ছেলেকে বলি যে বাবা এটা এসেছে। আমি সইটা করে দেব। এটা শুনে ও আমার হাত ধরে বলে মাম্মাম আমাদের স্কুলে এখন হিউম্যান বডি পড়াচ্ছে। তুমি জানো তো আমাদের শরীরে অ্যাপেন্ডিক্স বলে একটা অঙ্গ আছে। ওটা কোনও কাজে লাগে না। কিন্তু ইনফেকশন হলে কেটে বাদ দিতে হয়”।

পিঙ্কির সংযোজন, “আর আমি এটা ভেবে বললাম। আমি আর তুমি একটা টিম। আমরা ভালো থাকব”। এছাড়াও পিঙ্কি জানান, তাঁর ছেলে খালি চেয়েছিল ওর কাস্টডি যেন মাকে দেওয়া হয়।

এর আগেই পিঙ্কি জানিয়েছিলেন, “মিস ও করে না। ওর মনে কোনও প্রতিহিংসেও নেই। ও চায় বাবা নিজের মতো করে খুশি থাক’, জানান পিঙ্কি। সঙ্গে যোগ করেন, বাবার বিয়ের ভিডিয়ো দেখেও কোনও প্রতিক্রিয়া আসেনি ওশের থেকে। এমনকী, তাঁর ছেলের স্কুলের বন্ধুরাও খুব সাপোর্টিভ-সেন্সেটিভ। কেউ কোনওরকম ট্রোল করেনি তাঁর ছেলেকে”।

পিঙ্কির কথায়, “যা হয় ভালোর জন্যই হয়। একজন মা কখনও দুর্বল হয় না। সব পরিস্থিতি সামলাতে পারে তারা। আমার ছেলের বাবার বিয়ে ওর উপর কোনও প্রভাব ফেলবে না। কারণ ওর মায়ের নাম পিঙ্কি বন্দ্যোপাধ্যায়”।

Back to top button