বিনোদন

সেয়ানাদের বিষ দাঁত ভেঙে দিয়েছেন! পুনমকে বাহবা শিলাজিতের, আর কী লিখলেন গায়ক?

জরায়ুর ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন পুনম পান্ডে। এমনটাই খবর রটে গিয়েছিল। কিন্তু শনিবার সকালে হঠাৎই সোশ্যাল মিডিয়ায় হাজির হন অভিনেত্রী। ভিডিও বার্তায় বলেন, তিনি মারা যাননি। বরং সারভিক্যাল ক্যানসারের সচেতনতার প্রচারের জন্য তিনি এই কাজ করেছেন। কিন্তু তার এই সচেতনতার প্রচার মোটেই ভালো ভাবে নেননি কোনও মহল। নিন্দার ঝড় উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তবে এর মধ্যেই একেবারে অন্য রকম পোস্ট করলেন শিলাজিৎ মজুমদার।

   

ভারতে ফি বছর জরায়ুমুখের ক্যানসারে লাখ লাখ মহিলা আক্রান্ত হন। তাঁদের মুখ হয়ে এলেন পুনম। যদিও নিজের এই মিথ্যার জন্য ক্ষমা চেয়েছেন তিনি।পাশপাশি তাঁর এই উদ্যোগকে যাঁরা নিম্নরুচির পরিচয় বলে দেখছেন, তাঁদেরকেও আমন্ত্রণ জানিয়েছেন, খোলামনে তাঁর সঙ্গে কথা বলার জন্য।

শনিবার সকালে ওই ভিডিও বার্তায় অভিনেত্রী বলেছেন, “আমি প্রথমেই সকলের কাছে ক্ষমা চেয়ে নেব। আমাকে এমন এক পন্থা অবলম্বন করতে হল। যাঁরা আমার সমালোচনা করতে চান, আপনাদের আটকাব না। সারা বিশ্বে মহিলাদের মধ্যে এই জরায়ু-মুখের ক্যানসার ব্যাধি আকার ধারণ করেছে। এমন একটা গুরুতর বিষয়। তবু এখনও পর্যন্ত তেমন সচেতনতা নেই সাধারণ মানুষের মধ্যে। আর সেই কারণেই এমন একটা পদক্ষেপ করতে বাধ্য হলাম”।কিন্তু তাঁর ক্ষমা চাওয়ায় মন গলেনি। তাঁর বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার দাবিও উঠেছে।

এরমধ্যেই শিলাজিৎ মজুমদার তাঁর সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন, “পরম পূজনীয় পুনম, আপনার সাথে আমার আলাপ নেই। আপনি কী কী কাজ করেছেন আমি জানি না। কিন্তু আপনার এই খেলাটা আমার দারুন লেগেছে। ম্যাডাম আপনাকে প্রণাম। আপনি যে থাপ্পড়টা মারলেন। বড় বড় সেয়ানাদের আপনি জাস্ট বিষ দাঁত ভেঙে দিয়েছেন। আমি বিশ্বাস করি, আপনি এটা জ্ঞানত করেছেন এবং বেশ করেছেন”।

শিলাজিৎ যোগ করেন, “আপনাকে সেলাম, আপনি আমাকে না চিনেও, না জেনে ও, আমার মত অনেকের ভেতরে লুকিয়ে থাকা বিপ্লবটা করে দিয়েছেন। এর জন্য আপনাকে কোনও ঘোষিত রাজনৈতিক দলে যোগ দিতে হয়নি। এখনও পর্যন্ত। কাল কী হবে জানি না। আপনার কাজ কতটা ফলপ্রসূ হবে জানি না, কিন্তু আপনি যা করলেন এটা আমি বিপ্লব বলে বুঝলাম। আগামীকাল সেটা কী হবে? পতাকা? প্রতীক? পার্টি? না প্রপার্টি ? জানিনা,কিন্তু ইতিহাস হল”।

Back to top button