বিনোদন

৬৫ বছরেই জীবন যুদ্ধে হার, প্রয়াত শ্রীলা মজুমদার

প্রয়াত হলেন অভিনেত্রী শ্রীলা মজুমদার। ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই করে যাত্রা থামল অভিনেত্রীর। শনিবার ৬৫ বছর বয়সে মৃত্যু হয় তাঁর। অভিনেত্রীর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর মৃত্যুতে শোকের আবহ টলিউডে।

বিগত ৩ বছর ধরে ডিম্বাশয়ের ক্যানসারে ভুগছিলেন অভিনেত্রী। নভেম্বর মাসে শারীরিক অবস্থার অবনতি হয় অভিনেত্রীর।চলতি মাসের ১৩ তারিখ তাঁকে টাটা মেডিক্যাল ক্যানসার সেন্টারে ভর্তি করা হয়। ২০ তারিখ পর্যন্ত সেখানে ভর্তি ছিলেন শ্রীলা।রাতেই কেওড়াতলা মহাশ্মশানে শেষকৃত্য সম্পন্ন হয় অভিনেত্রীর।

এদিন এক্স হ্যান্ডেলে শোক প্রকাশ করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লেখেন, আজ বিকেলে চলচ্চিত্র অভিনেত্রী শ্রীলা মজুমদারের মৃত্যু সংবাদে শোকাহত। শ্রীলা ছিলেন একজন উল্লেখযোগ্য এবং শক্তিশালী অভিনেত্রী যিনি বেশ কয়েকটি উল্লেখযোগ্য ভারতীয় চলচ্চিত্রে অসামান্য ভূমিকা পালন করেছিলেন। এটি বাংলা চলচ্চিত্র শিল্পের জন্য একটা বড় ক্ষতি। আমরা ওঁর দুর্দান্ত উপস্থিতির অভাব বোধ করব। ওঁর পরিবারের প্রতি আমার সমবেদনা রইল।

মাত্র ১৬ বছর বয়সে ১৯৭৯ সালে মৃণাল সেনের পরশুরাম ছবিতে তাঁর আত্মপ্রকাশ ঘটে। তারপর মৃণাল সেনের মোট ৬ ছবিতে অভিনয় করেছেন শ্রীলা। মৃণাল সেনের ‘একদিন প্রতিদিন’, ‘খারিজ’ ছবিতে মমতা শঙ্করের সঙ্গে অভিনয় করেছেন তিনি। এছাড়াও পরিচালক মৃণাল সেনের ‘অকালের সন্ধানে’, ‘চোখ’ সহ মোট ৬টি ছবিতে অভিনয় করেছিলেন তিনি।

শাবানা আজমি, নাসিরুদ্দিন শাহ, স্মিতা পাতিলের মতো অভিনেতাদের সঙ্গে কাজ করেছেন শ্রীলা, পেয়েছেন অসংখ্য পুরস্কার। শ্যাম বেনেগালের ‘আরোহন’, মান্ডির মতো ছবিতেও দেখা গিয়েছে তাঁকে। শেষ বার কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়ের ‘পালান’ ছবিতে অভিনয় করেছেন শ্রীলা মজুমদার।

Back to top button